Amit Shah: পুলওয়ামার সিআরপিএফ ক্যাম্পে রাত কাটালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বললেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ স্বপ্নের কথা

Amit Shah spent night in CRPF Camp: ৩৭০ অনুচ্ছেদ অবলুপ্তির পর কোনও রক্তক্ষয়ী ভয়াবহ সংঘর্ষ না হওয়ায় সিআরপিএফ ও অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান অমিত শাহ।

Amit Shah: পুলওয়ামার সিআরপিএফ ক্যাম্পে রাত কাটালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বললেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ স্বপ্নের কথা
পুলওয়ামার সিআরপিএফ ক্য়াম্পে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ছবি: টুইটার

শ্রীনগর: দীর্ঘ দুই বছর পর উপত্যকা সফরে (Jammu kashmir Visit) গিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। সোমবারই তাঁর দিল্লিতে ফিরে আসার কথা থাকলেও আরও এক রাত ভূস্বর্গেই কাটালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সফরের শেষদিনে তিনি পুলওয়ামা(Pulwama)-র লেখপোরায় সিআরপিএফ বাহিনীর ক্যাম্পাসেই (CRPF Campus) রাত কাটালেন, যেখানে ২০১৯ সালে হামলা চালিয়েছিল পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিরা।

সোমবারই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, “সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে মোদী সরকার শূন্য সহনশীল নীতি অনুসরণ করে এবং বিগত কয়েক বছরে জম্মু-কাশ্মীরে পরিস্থিতিও অনেক উন্নতি হয়েছে।” সিআরপিএফ ক্যাম্পে রাত কাটানো প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমনত্রী বলেন, “আমি আপনাদের (সিআরপিএফ জওয়ান) একরাত থাকতে চাই এবং আপনাদের সমস্যাগুলি বুঝতে চাই।” সিআরপিএফ জওয়ান ও আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলে তিনি জানান, উপত্যকা সফরে এটি সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ছিল জওয়ানদের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি উপলব্ধি করা।

জম্মু-কাশ্মীরের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে তিনি জানান, বিগত কয়েক বছরে উপত্যকায় আইন শৃঙ্খলা ব্যবস্থার যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। আগামিদিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যে শান্তিপূর্ণ জম্মু-কাশ্মীর কল্পনা করেছেন, তাও সফল হবে বলে আশাবাদী তিনি, এমনটাই জানান।

এই বিষয়ে তিনি বলেন, “পাথর ছোড়ার ঘটনা আমরা তখনই দেখতে পাব, যখন আমরা সেই ধরনের ঘটনা খুঁজে বের করার চেষ্টা করব। একটা সময় ছিল, যখন কাশ্মীরে পাথর ছোড়ার ঘটনা নিত্য়দিনের ঘটনা ছিল। সেই ঘটনা এখন অনেকাংশে কমে গিয়েছে। তবে এতেই সন্তুষ্ট হলে চলবে না, তাও আমি জানিয়ে রাখতে চাই।”

সন্ত্রাসবাদ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকার সন্ত্রাসবাদ নিয়ে কোনও ধরনের সহনশীলতা নীতি অনুসরণ করে না। মানবতার বিরুদ্ধে এই ধরনের হামলাকে আমরা কখনওই মেনে নেব না। এই ধরনের ঘৃণ্য অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের হাত থেকে কাশ্মীরের মানুষদের রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব।”

৩৭০ অনুচ্ছেদ অবলুপ্তির পর কোনও রক্তক্ষয়ী ভয়াবহ সংঘর্ষ না হওয়ায় সিআরপিএফ ও অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীকে বিশেষ ধন্যবাদ জানান অমিত শাহ। তিনি বলেন, “ভারতীয় সেনা ও সিআরপিএফ বাহিনী জঙ্গিদের দমন করে উপত্যকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ফলেই বর্তমানে একাধিক উন্নয়ন দেখা যাচ্ছে, তা সে পরিকাঠামো ক্ষেত্রেই হোক বা শিল্প বা শিক্ষাক্ষেত্রে।”

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫এ অনুচ্ছেদ অবলুপ্তির পর একাধিক মানুষ বলেছিলেন যে এর তীব্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া যাবে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সম্ভাবনাও ছিল, তবে ভারতীয় সেনা, সিআরপিএফ বাহিনী ও অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনী যেভাবে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন, সেই কারণেই একটিও গোলগুলির ঘটনা ঘটেনি।

পুলওয়ামায় মেডিক্যাল কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন প্রসঙ্গেও তিনি জানান, আগে পুলওয়ামা দেশ তথা গোটা বিশ্বের কাছে সিআরপিএফ বাহিনীর উপর সন্ত্রাসবাদী হামলার ঘটনাস্থল হিসাবে পরিচিত ছিল, নতুন মেডিক্যাল কলেজ তৈরির মাধ্যমে নতুন পরিচয় পাবে পুলওয়ামা।

তিনি বলেন, “২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল অবধি প্রতিবছর গড়ে ২০৮ জন সাধারণ মানুষ ও ১০৫ জন নিরাপত্তা বাহিনীর জওয়ান মারা যেতেন জঙ্গি হামলায়। বর্তমানে সেই সংখ্যাটাই কমে দাঁড়িয়েছে ৩০ জন সাধারণ নাগরিক  ৬০ জন জওয়ানে। তবে ৩০ জন সাধারণ নাগরিকই বা কেন প্রাণ হারাবে?”

আরও পড়ুন: Indian Army: লালফৌজের ‘চোখ রাঙানি’ উপেক্ষা করেই লাদাখে সেনা প্রস্তুতি খতিয়ে দেখলেন শীর্ষকর্তারা 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla