নারদ মামলায় ব্যাঙ্কশাল আদালতে হাজিরা চার হেভিওয়েটের

নারদ মামলায় (Narada Case) ব্যাঙ্কশাল কোর্টে (Bankshall Court) হাজিরা দিলেন চার হেভিওয়েট। অন্তবর্তী জামিনের শর্ত মেনে হাজিরা দিলেন তাঁরা। শুক্রবার সকাল ১০ টা ৪০ মিনিট নাগাদ আদালতে হাজিরা দিলেন ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee), মদন মিত্র (Madan Mitra) ও শোভন চট্টোপাধ্যায় (Sovan Chatterjee)।

নারদ মামলায় ব্যাঙ্কশাল আদালতে হাজিরা চার হেভিওয়েটের
অভিযুক্ত চার নেতা
শর্মিষ্ঠা চক্রবর্তী

|

Jun 04, 2021 | 1:04 PM

কলকাতা: নারদ মামলায় (Narada Case) ব্যাঙ্কশাল কোর্টে (Bankshall Court) হাজিরা দিলেন চার হেভিওয়েট। অন্তবর্তী জামিনের শর্ত মেনে হাজিরা দিলেন তাঁরা। শুক্রবার সকাল ১০ টা ৪০ মিনিট নাগাদ আদালতে হাজিরা দিলেন ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee), মদন মিত্র (Madan Mitra) ও শোভন চট্টোপাধ্যায় (Sovan Chatterjee)। শোভনের সঙ্গে ছিলেন তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়।

সকালে প্রথমে আদালতে পৌঁছন ফিরহাদ হাকিম। তাঁর গাড়িতেই ছিলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। নিজের গাড়িতে যান মদন মিত্র। অন্যদিকে বৈশাখীখে সঙ্গে নিয়ে আদালতে যান শোভন।

নারদ মামলায় গত ১৭ মে চার হেভিওয়েটকে গ্রেফতার করে সিবিআই। ওই দিনই নিম্ন আদালতে তাঁদের জামিন প্রথমে মঞ্জুর হয়ে যায়। কিন্তু জামিনের ওপর স্থগিতাদেশের আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় সিবিআই। জামিন স্থগিত হয়ে যায়। চার হেভিওয়েটের ঠাঁই হয় প্রেসিডেন্সি জেল। পরের দিনই অসুস্থ হয়ে পড়েন মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়। তাঁদেরকে এসএসকেএমর উডবার্ন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তারপর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এদিকে, জ্বর পেটে ব্যথা নিয়েও হাসপাতালে যাননি ফিরহাদ। প্রেসিডেন্সি জেলেই চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে ছিলেন তিনি।

প্রথম থেকেই এই মামলায় দুটি ইস্যুকে সামনে রেখে আটঘাঁট বেঁধে নেমেছিল সিবিআই। এক. চার হেভিওয়েটের জামিন স্থগিত। দুই. মামলাটি অন্যত্র সরানো। এক্ষেত্রে নিজাম প্যালেসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনা, তৃণমূল কর্মীদের বিক্ষোভ, নিম্ন আদালতে আইনমন্ত্রী মলয় ঘটকের উপস্থিতি- ১৭ মে অর্থাৎ চার হেভিওয়েটের গ্রেফতারের পর গোটা ঘটনাক্রমকে সামনে রেখে ঘুঁটি সাজায় সিবিআই। রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা, সিবিআইয়ের কাজে বাধাদান এবং নিম্ন আদালতকে প্রভাবিত করার মতো বিষয়গুলো সামনে তুলে ধরা হয়েছে।

আরও পড়ুন: কাঞ্চনকন্যা এক্সপ্রেসে আগুন, ধোঁয়ায় ভরল ট্রেনের কামরা

২৪ মে বৃহত্তর বেঞ্চে চার হেভিওয়েটের জামিন সংক্রান্ত শুনানি হলেও কোনও রায় ঘোষণা হয়নি। মধ্যরাতে নাটকীয়ভাবে সিবিআই আর্জি জানায় সুপ্রিম কোর্টে। ২৫ মে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার ভূমিকার তীব্র সমালোচনা করে শীর্ষ আদালত। মামলাটি ফের ফেরে হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চেই। এরপর জামিন মঞ্জুর হয়ে যায় চার হেভিওয়েটের। তবে তাঁদের নির্দিষ্ট দিনে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla