RG Kar Medical College: অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবিতে অনড় আরজি করের পড়ুয়ারা, এবার বসলেন রিলে অনশনে

Student Protest: কিন্তু কেন অধ্যক্ষের পদত্যাগ চাইছেন পড়ুয়ারা। তাঁদের দাবি, অধ্যক্ষ সন্দীপ ঘোষ এমন কিছু সিদ্ধান্ত নেন যা অগণতান্ত্রিক। যেখানে অধ্যক্ষের স্বৈরাচারী মনোভাব স্পষ্ট হয়।

RG Kar Medical College: অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবিতে অনড় আরজি করের পড়ুয়ারা, এবার বসলেন রিলে অনশনে
আরজিকর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে হবু চিকিৎসকদের বিক্ষোভ। ফাইল চিত্র।

কলকাতা: আরজি কর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (RG Kar Medical College Hospital) অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবিতে রিলে অনশনে বসেছেন পড়ুয়াদের একাংশ। শুক্রবার কলেজ কাউন্সিলের বৈঠক ছিল। এরপরই ফলের রস নিয়ে অধ্যক্ষ, বিভাগীয় প্রধানরা অনশন মঞ্চে গিয়েছিলেন। কিন্তু পড়ুয়ারা অনশন তুলতে রাজি হননি। পাল্টা তাঁরা দাবি করেছেন, অধ্যক্ষ সন্দীপ ঘোষ পদ ছাড়লেই মেডিক্যাল কলেজ চত্বরের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরে পাওয়া সম্ভব।

কিন্তু কেন অধ্যক্ষের পদত্যাগ চাইছেন পড়ুয়ারা। তাঁদের দাবি, অধ্যক্ষ সন্দীপ ঘোষ এমন কিছু সিদ্ধান্ত নেন যা অগণতান্ত্রিক। যেখানে অধ্যক্ষের স্বৈরাচারী মনোভাব স্পষ্ট হয়। আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, “গত ৯ অগস্ট আমরা মিটিংয়ে বসতে চেয়ে প্রিন্সিপাল স্যারের কাছে যাই। স্যার আমাদের সঙ্গে মিটিং না করায় আমরা অবস্থানে বসতে বাধ্য হই। ১০ অগস্ট আমাদের আশ্বাস দেওয়া হয়, দাবিদাওয়া নিয়ে কলেজ কাউন্সিলের বৈঠক হবে। যদিও কোনও অজ্ঞাত কারণে তা হয়নি। আমরা এই ব্যাপারে প্রশ্ন করলে বলা হয় যে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ না এলে কলেজ কাউন্সিলের মিটিং করা যাবে না।”

একই সঙ্গে পড়ুয়াদের অভিযোগ, গত ২ অগস্ট কর্তৃপক্ষের তরফে ‘হোস্টেল কমিটি’ তৈরি হয় আরজি করে। কিন্তু সেই কমিটিটি পড়ুয়াদের অন্ধকারে রেখে তৈরি হয় বলে অভিযোগ পড়ুয়াদের। সেই কমিটির ভবিষ্যৎ কার্যাবলী ও কার্যপদ্ধতি নিয়ে প্রশ্নের অবকাশ রয়েছে বলে দাবি পড়ুয়াদের। একই সঙ্গে তাঁরা বলেন, হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিনেশনের মত গুরুত্বপূর্ণ কাজ অধ্যক্ষের জন্য বন্ধ রয়েছে। যা ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে ক্ষতিকারক।

আন্দোলনকারীরা বলেন, “আমাদের কলেজের কোভিড আক্রান্ত ছাত্রীদের জন্য পৃথক আইসোলেশন রুম-এর ব্যবস্থা না থাকায় আমাদের পক্ষ থেকে আবেদন করতে যাওয়া হয়। কিন্তু প্রিন্সিপাল স্যার আমাদের এই ন্যায্য দাবি নস্যাৎ করে দেন। উনি সব ক্ষেত্রেই স্বেচ্ছাচারিতাকে গুরুত্ব দেন। এখানে হাউজস্টাফশিপ কাউন্সেলিং নিয়ে চূড়ান্ত অনিয়ম হয়। তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হলেও অধ্যক্ষ কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি। বরং পরবর্তী হাউজস্টাফশিপ কাউন্সেলিং পদ্ধতি অযথা দীর্ঘায়িত করে কলেজের ছাত্রছাত্রীদের ন্যায্য অধিকার খর্ব করেছেন।”

গত কয়েকদিনে বার বার শিরোনামে উঠে এসেছে আরজি কর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নাম। গত ১ অক্টোবরই আরজি কর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষকে ঘেরাও করে দফায় দফায় বিক্ষোভে সরগরম হয়ে ওঠে হাসপাতাল চত্বর। মাঝরাতে রোগী কল্যাণ কমিটির চেয়ারম্যান সুদীপ্ত রায়ের উপস্থিতিতে আরজি কর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ সন্দীপ ঘোষ ও বিক্ষোভকারী পড়ুয়াদের মধ্যে ঘণ্টা তিনেকের আলোচনা চলে।

এর আগেও আরজি করের অধ্যক্ষ সন্দীপ ঘোষের বিরুদ্ধে একাধিকবার ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ দেখান ছাত্র-ছাত্রীরা। মেডিক্যাল কলেজ ক্যাম্পাসে পোস্টারও পড়ে। যেখানে অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবি করা হয়। সেই ঘটনা ঘিরে হাসপাতালের এমএসভিপি সঞ্জয় বশিষ্ঠকে অসুস্থ হয়ে কার্ডিওলজি বিভাগে ভর্তি পর্যন্ত হতে হয়।

আরও পড়ুন: TMC VS Congress: জোর তরজা হাত-ঘাসফুলে! এবার তৃণমূলের নিশানায় ছত্তীসগঢ়ের কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla