IPL 2021: ফার্নিচারের দোকানে রং করা ছেলের স্বপ্নপূরণের গল্প

অজি বোলার বলেন, 'তাসমানিয়ায় (Tasmania) থাকার সময় প্রায় ৫-৬ রকমের কাজ করতাম। সেই কাজ করেই বাড়ি ভাড়া দিতাম। বাগানে কাজ করতাম। কিন্তু শনিবার করে ওরা আমাকে চাইত। কিন্তু শনিবার করে ক্রিকেট ম্যাচ থাকায় সেই কাজ ছেড়ে দিয়েছিলাম। এরপর একটা ফার্নিচারের দোকানে রং করতাম, ঘষামাজা করতাম। কিন্তু কাজের দিনে খেলা পড়ে যাওয়ায় ওই কাজটাও ছেড়ে দিতে বাধ্য হই।'

IPL 2021: ফার্নিচারের দোকানে রং করা ছেলের স্বপ্নপূরণের গল্প
নাথান এলিস। ছবি: টুইটার

শারজা: অভিষেক আইপিএলেই (IPL) বাজিমাত। তাও আবার হাইটেনশন ম্যাচের একেবারে শেষ ওভারে। অস্ট্রেলিয়ার পেসার নাথান এলিস (Nathan Ellis) নিজের আইপিএল অভিষেকেই মূল্যবান ২ পয়েন্ট এনে দিলেন পঞ্জাব কিংসকে (Punjab Kings)। যাঁর দৌলতে প্লে অফের (Play Off) দৌড়ে ভেসে রইলেন লোকেশ রাহুলরা (KL Rahul)। আক্রমণাত্মক জেসন হোল্ডারকে (Jason Holder) একের পর এক বুদ্ধিদীপ্ত ডেলিভারিতে নাজেহাল করলেন। কিন্তু কে এই নাথান এলিস?

অস্ট্রেলিয়ার ডান হাতি এই মিডিয়াম পেসার সানরাইজার্স হায়দরাবাদের (Sunrisers Hyderabad) বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে করেন ১২ রান। বল হাতে কোনও উইকেট না পেলেও ছাপ রাখল তাঁর শেষ ওভার। অথচ বছর পাঁচেক আগেও বাগানে কাজ করতেন এই অজি পেসার। হতাশায় ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নকে একরকম জলাঞ্জলি দিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। পারফর্ম করা সত্ত্বেও নির্বাচকদের নজর এড়িয়ে যেত। নিউ সাউথ ওয়েলসের (New South Wales) ছেলে মনের দুঃখে পাড়ি দেন তাসমানিয়ায়। আর সেখান থেকেই স্বপ্নের পথে পাড়ি নাথান এলিসের।

 

পুরনো দিনের কথা প্রসঙ্গে অজি বোলার বলেন, ‘তাসমানিয়ায় (Tasmania) থাকার সময় প্রায় ৫-৬ রকমের কাজ করতাম। সেই কাজ করেই বাড়ি ভাড়া দিতাম। বাগানে কাজ করতাম। কিন্তু শনিবার করে ওরা আমাকে চাইত। কিন্তু শনিবার করে ক্রিকেট ম্যাচ থাকায় সেই কাজ ছেড়ে দিয়েছিলাম। এরপর একটা ফার্নিচারের দোকানে রং করতাম, ঘষামাজা করতাম। কিন্তু কাজের দিনে খেলা পড়ে যাওয়ায় ওই কাজটাও ছেড়ে দিতে বাধ্য হই। এরপর নির্মাণ কাজের সঙ্গে যুক্ত হই। কিন্তু ওই কাজে খুব ধকল যেত। তাই ছেড়ে দিই।’

 

সকাল ৬টায় উঠে জিমে যেতেন। তারপর কাজে। সেই কাজ সামলে প্র্যাকটিস সেশনে। কোনও বিরাম ছাড়াই একটা সময় টানা কাজ করে যেতেন এলিস। তবে সেখানে খেলার পাশাপাশি কাজ করেও পয়সা জমাতে পারতেন না। তাই বাড়ি ফিরে যাওয়ার ভাবনা আবার মাথায় চড়ে বসে। কিন্তু তাসমানিয়ার কোচের জোরাজুরিতেই আরও এক বছর সেখানে থেকে যান। আর তারপরেই জীবনের মোড় ঘুরল। বিগ ব্যাশে খেলার ডাক পেলেন এলিস। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। জাতীয় দলের জার্সিতেও খেলার ডাক পান এলিস। আর অভিষেক ম্যাচেই ঢাকায় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করেন। অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলের রিজার্ভে রাখা হয়েছে তাঁকে। বিশ্বের জনপ্রিয় টি-২০ লিগ আইপিএলেও ডাক পান এরপর। সাফল্যের চাকা ঘুরতে থাকে এলিসের। ২৭ বছরের এই অজি পেসারের জীবনকাহিনি হার মানাবে সবাইকে।

 

আরও পড়ুন: IPL 2021: সুপার সানডে-তে বিরাট-রোহিত মেগা টক্কর

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla