TOKYO PARALYMPICS 2020: নিজেকে কোনওদিন প্রতিবন্ধী ভাবিনি: ভাবিনা

ভারতীয় টেবিল টেনিসের মঞ্চে এক দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন ভাবিনাবেন প্যাটেল। হার না মানা লড়াই আর জেদেই টোকিও প্যারালিম্পিকের ফাইনালে তিনি।

TOKYO PARALYMPICS 2020: নিজেকে কোনওদিন প্রতিবন্ধী ভাবিনি: ভাবিনা
TOKYO PARALYMPICS 2020: নিজেকে কোনওদিন প্রতিবন্ধী ভাবিনি: ভাবিনা

টোকিও: টেবিল টেনিসে (Table Tennis) কখনই সে ভাবে সাফল্য আসেনি। প্যারালিম্পিকের (Paralympics) মঞ্চে সমস্ত হিসেব নিকেশ একাই পাল্টে দিলেন ভাবিনাবেন প্যাটেল (Bhabinaben Patel)। রুপো নিশ্চিত করে ফেলেছেন। শেষ ল্যাপে জিতলে এসে যাবে সোনা। ভারতীয় টেবিল টেনিসের মঞ্চে এক দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন ভাবিনাবেন প্যাটেল। হার না মানা লড়াই আর জেদেই টোকিও প্যারালিম্পিকের ফাইনালে তিনি।

প্রথম ভারতীয় প্যাডলার হিসেবে প্যারালিম্পিকের ফাইনালে ভাবিনা। ক্লাস-ফোর (Class Four) সেমিফাইনালে চিনা প্রতিপক্ষকে হারালেন ৩-২ ব্যবধানে। গুজরাতের ৩৪ বছরের মেয়ে এখানেই থামতে চান না। সোনা জিতে দেশকে গর্বিত করাই তাঁর লক্ষ্য। শনিবার চিনের প্রতিপক্ষকে হারালেন ৭-১১, ১১-৭, ১১-৪, ৯-১১ ও ১১-৮ ফলে।

সেমিফাইনালে জেতার পর ভাবিনা বলেন, ‘কোনও কিছুই অসম্ভব নয়। আমি নিজেকে কখনও প্রতিবন্ধী হিসেবে ভাবিই নি। নিজের উপর আত্মবিশ্বাস আছে। সবসময় ভাবি, আমি ঠিক করে দেখাতে পারব। আজ আমি প্রমাণ করে দেখালাম। আমরা একদমই পিছিয়ে নেই। ভারতীয় প্যারা টেবিল টেনিসকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বার্তা দিলাম।’

মাত্র ১ বছর বয়সেই পোলিওয় আক্রান্ত হন ভাবিনাবেন (Bhabinaben Patel)। শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে দূরে ঠেলে নিজের লক্ষ্যে এগিয়ে যান। রবিবার চিনের আরেক প্রতিপক্ষের সামনে গুজরাতের ৩৪ বছরের প্যাডলার। চিনের জিং বিশ্বের এক নম্বর। তাঁকে হারালেই সোনা জিতবেন ভাবিনা। রবিবার ভারতীয় সময় ভোর ৪টেয় ম্যাচ। ফোকাস রাখতে ধ্যান আর যোগাসন করেন। মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে আসা। এই সাফল্যের জন্য সাই (SAI) এবং কেন্দ্র সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ভাবিনা। তাঁর এই সাফল্যে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও (Narendra Modi)।

আরও পড়ুন: TOKYO PARALYMPICS: সোনার হাতছানি ভাবিনাবেনের সামনে

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla