আমেরিকাকে টক্কর! ২০৩৩-এ মঙ্গলে প্রথম মানুষ পাঠানোর দাবি চিনের

সম্প্রতি, চিনা স্পেশ স্টেশনে Shenzhou-12 মহাকাশযানে করে তিন মহাকাশ্চারীকে পাঠানো হয়েছে। তিয়ানগং স্পেস স্টেশনে পৌঁছতে প্রায় ৭ ঘণ্টা সময় লেগেছে এই মহাকাশযানের।

আমেরিকাকে টক্কর! ২০৩৩-এ মঙ্গলে প্রথম মানুষ পাঠানোর দাবি চিনের
ছবিটি প্রতীকী

মঙ্গল অভিযান নিয়ে নাসার সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে চিন। ২০৩৩ সালে মঙ্গলের মাটিতে মানুষ পাঠাতে চেয়ে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে মার্কিন এই মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রটি। ২০৩০ সালে মহাকাশবিজ্ঞানে বিপ্লব আনার ঘোষণা করে দিয়েছে নাসা। আমেরিকার পরই এবার লাল গ্রহে দেশের প্রথম মানুষ পাঠানোর তোড়জোড় শুরু করে দিল চিনও। মাটি পা রাখাই নয়, চিনের স্পপ্ন, সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য দীর্ঘমেয়াদী একটি পরিকল্পনা করা চিন্তাভাবনা শুরু করেছে। আমেরিকার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমে বৈপ্লবিক ঘোষণা করেছে চিন সরকার।

সম্প্রতি, নাসার পরই মঙ্গলে প্রাণের সন্ধানে রোবোটিক রোভার অবতরণের পরই এই দাবি করেছে চিন। ২০৩৩, ২০৩৫, ২০৩৭, ২০৪১ এবং আরও কয়েক বছরে নভোশ্চর পাঠানোর পরিকল্পনা রয়েছে চিনের। প্রসঙ্গত, রাশিয়ার একটি মহাকাশ গবষেণা ও অনুসন্ধান সম্মেলনে চিনের প্রদান রকেট নির্মাতা ওয়াং জিয়াজুন এই দাবি করেছেন বলে জানা গিয়েছে। ক্র মিশন শুরু আগে, চিন মঙ্গলের বিভিন্ন জায়গাগুলিতে নিখুঁত পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানোর জন্য রোবট পাঠাবে, এছাড়া লাল গ্রহে অবতরণের জন্য দরকার উপযুক্ত তথ্য। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই মহাকাশ যান তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে চিনের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের।

আরও পড়ুন: চিনের মহাকাশযান Shenzhou-12-য় চড়ে স্পেস স্টেশনে পৌঁছলেন তিন নভশ্চর

চিনের দাবি, লাল গ্রহে প্রাণের সন্ধান পেলে সেখানে মানুষের জন্য বসবাসের জন্য উপযুক্ত আবাসন তৈরি করা, গ্রহের মাটির নীচ থেকে জল উত্তোলনের প্রক্রিয়া, অক্সিজেন উত্পাদন করা ও বিদ্যুত উত্পাদন করার মতো যন্ত্র তৈরি করতে সক্ষম চিন। লাল গ্রহে পৌঁছে ফের পৃথিবীর মাটিতে মানুষ ফেরানোর প্রযুক্তির বিকাশ ঘটানোর প্রস্তুতি শুরু করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে ২০৩০ সালে যে মঙ্গল অভিযান চালানো হবে, তা আদতে একটি রাউন্ড ট্রিপ মিশন হিসেবে কার্যকরী হবে বলে জানিয়েছে মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রটি।

প্রসহ্গত, চাঁদের দুর্গম ও অজানা দক্ষিণ মেরুতে আন্তর্জাতিক বেস স্থাপনের ইঙ্গিত দিয়েছে চিন। শুধু তাই নয়, বৃহস্পতির মতো গ্রহের কাছাকাছি রোবোটিক অভিযান মোতায়েন করেছে এই দেশ। সম্প্রতি, চিনা স্পেশ স্টেশনে Shenzhou-12 মহাকাশযানে করে তিন মহাকাশ্চারীকে পাঠানো হয়েছে। তিয়ানগং স্পেস স্টেশনে পৌঁছতে প্রায় ৭ ঘণ্টা সময় লেগেছে এই মহাকাশযানের। জানা গিয়েছে, আগামী তিন মাস তিন নভশ্চর ওই স্পেস স্টেশনেই থাকবেন ।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla