TMC: ‘সঠিক কাজ করলেও মিলতে পারে অপমান ও অবহেলা,’ রবিবারে ‘অভিমানী’ রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে জল্পনা

Rabindranath Ghosh: দিনহাটার উপনির্বাচন (Dinhata By Election) -এর প্রচার নিয়ে ব্যস্ততা তুঙ্গে তৃণমূলের (TMC)। পিছিয়ে নেই বিজেপি-ও (BJP)। এর মধ্যেই রবিবার প্রাক্তন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ (Rabindranath Ghosh)- একটি 'অভিমানী' সংক্ষিপ্ত ফেসবুক পোস্ট ঘিরে রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য।

TMC: 'সঠিক কাজ করলেও মিলতে পারে অপমান ও অবহেলা,' রবিবারে 'অভিমানী' রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে জল্পনা
রবীন্দ্রনাথের ফেসবুক পোস্ট ঘিরে জল্পনা। (ফাইল চিত্র)

কোচবিহার: বিজয়া কেটেছে। দিনহাটার উপনির্বাচন (Dinhata By Election) -এর প্রচার নিয়ে ব্যস্ততা তুঙ্গে তৃণমূলের (TMC)। পিছিয়ে নেই বিজেপি-ও (BJP)। এর মধ্যেই রবিবার প্রাক্তন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ (Rabindranath Ghosh)- একটি ‘অভিমানী’ সংক্ষিপ্ত ফেসবুক পোস্ট ঘিরে রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য। ঠিক কী লিখেছেন তিনি?

রবিবার রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, “জীবনের সঠিক কাজ করলেও মিলতে পারে অপমান ও অবহেলা , তাতে খারাপ লাগে ….।” উৎসবের মরসুমে হঠাৎ কী হল প্রাক্তন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীর? তাঁর এই ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে চাঞ্চল্য।

উল্লেখ্য, দিনহাটার উপ নির্বাচনের আগে রবীন্দ্রনাথকে জেলার বাইরের শান্তিপুর বিধানসভার দেখভালের দায়িত্ব দিয়েছে তৃণমূল। সেই কাজে আপাতত তিনি কোচবিহারের বাইরে। কেন এই সময়ে রবীন্দ্রনাথবাবুর এই পোস্ট? এর মধ্যে আসলে লুকিয়ে কোন প্রশ্ন? এই নিয়ে চাঞ্চল্য জেলার রাজনৈতিক মহলে।
রবীন্দ্রনাথ বাবুর ঘনিষ্ট মহল মনে করছে, যেভাবে তিনি ২০ বছরের বেশি সময় জেলায় দলকে শক্তিশালী করেছেন, তার পর আজকের দিনে দলে তাঁর অবস্থা অন্তত এদিকেই ইঙ্গিত করছে। তাই হয়ত প্রাক্তন মন্ত্রী অভিমানী হয়ে পড়েছেন। তবে এই নিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ আলাদা করে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।

প্রসঙ্গত, একুশের বিধানসভা ভোটে সারা পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের জয়জয়কার, মমতা আবেগে ভেসেছে রাজ্য, তখন আলাদা চিত্র দেখা গিয়েছে কোচবিহারে। শুধু কী তাই! জেলার ৯ টি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ২ টি আসনে জয় পায় ঘাসফুল শিবির। আর তাদের সেই পরাজিত প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন খোদ রাজ্যের প্রাক্তন দুই মন্ত্রী- রবীন্দ্রনাথ ঘোষ এবং বিনয়কৃষ্ণ বর্মন।

খোদ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ হেরে গিয়েছেন তাঁর এক সময়ের রাজনৈতিক সতীর্থ বিজেপির মিহির গোস্বামীর কাছে। দলে থাকাকালীন অবশ্য তাঁর সঙ্গে রবীন্দ্রনাথের বনিবনা ছিল না। বরাবরই তিনি কোচবিহার দক্ষিণ আসন থেকে লড়তেন। তবে এবার নাটাবাড়ি আসন থেকে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বিরুদ্ধে মিহিরকে লড়তে পাঠিয়েছিল বিজেপি। ফল বেরতে দেখা গেল মিহির গোস্বামীর কাছে পরাজিত হয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

আরও পড়ুন: Suicide: মেয়ের উচ্চশিক্ষায় বাধ সাধল আর্থিক অনটন, ‘কন্যাশ্রী’র রাজ্যে আত্মঘাতী বাবা

প্রশ্ন ওঠে গোটা উত্তরবঙ্গের উন্নয়ন যাঁর কাঁধে রেখেছিল দল, সেউ তিনিই নিজের কেন্দ্র বাঁচাতে পারলেন না? তার পর রবীন্দ্রনাথকে জেলার বাইরের শান্তিপুর বিধানসভার দেখভালের দায়িত্ব দিয়েছে দল। আর এই প্রেক্ষিতে তাঁর এই ফেসবুক পোস্ট ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন: Udayan Guha: ৫৭-র বদলা নিতে মরিয়া উদয়ন, ভোটের আগে ভাঙন ধরালেন বিজেপিতে

আরও পড়ুন: Medinipur: ‘কোলে বাচ্চাকে বসিয়ে বাস থেকে ধাঁ হয়ে গেল!’ একরত্তিকে নিয়ে বিড়ম্বনায় মাছ ব্যবসায়ী 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla