ঝোপে পড়েছিল হেলমেট, তাতে আটকে কাটা মুণ্ড, দেহটা পড়ে ছিল কয়েক হাত দূরে!

লমেটে আটকে থাকা মুণ্ডটা উদ্ধার করে জঙ্গলের ভিতর থেকে। অত্যন্ত ভয়ানক অবস্থায় ছিল গোটা শরীরের।

ঝোপে পড়েছিল হেলমেট, তাতে আটকে কাটা মুণ্ড, দেহটা পড়ে ছিল কয়েক হাত দূরে!
নিজস্ব চিত্র

শিলিগুড়ি: হেলমেটটা ছিল জঙ্গলের মধ্যে পড়া। আর বাইকটা তার থেকে কিছুটা দূরে ফাঁকা জায়গায়। দেহটা আরেকটু দূরে। দূর থেকে দেখে স্থানীয়ার মনে করেছিলেন বাইক দুর্ঘটনা। কাছ যেতেই হাত পা ঠান্ডা হয়ে গেল তাঁদের। দেহে নেই মুণ্ড। হেলমেটের মধ্যে আটকে রয়েছে রক্তাক্ত মুণ্ড। মাছি ঘুরে বেড়াচ্ছে চারপাশে। দেহেতেও একাধিক ক্ষতচিহ্ন। ভয়ানক ঘটনা শিলিগুড়ির (Siliguri) ফাঁসিদেওয়াতে।

শুক্রবার সকালে সকালে ফাঁসিদেওয়ার ঝমকলালজোতে জাতীয় সড়কের পাশে এক ব্যক্তির দ্বিখণ্ডিত মৃতদেহ উদ্ধার হয়।ক্যানেলের পাশে পড়েছিল বাইক আর দেহটি। স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন। কিন্তু তখনও আসল রহস্য বাকি। পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে। আর হেলমেটে আটকে থাকা মুণ্ডটা উদ্ধার করে জঙ্গলের ভিতর থেকে। অত্যন্ত ভয়ানক অবস্থায় ছিল গোটা শরীরের।

হেলমেটে আটকে মুণ্ড

প্রথমটায় শিউরে ওঠেন দুঁদে পুলিশ কর্তারাও। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানতে পেরেছে মৃত ব্যক্তির নাম উমেশ শাহ। বছর চল্লিশের ওই ব্যক্তি শিলিগুড়ির ঝংকার মোড়ের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ কুকুর দিয়ে এলাকায় চলছে তল্লাশি।

আরও পড়ুন: শরীরের অংশ ছড়িয়ে-ছিটিয়ে, মাথা কার্যত মিশেছে রাস্তায়, শিউরে উঠলেন হাইওয়ের ধারের দোকানিরা

দেহটা পড়েছিল ধারে

দুর্ঘটনা নয়, খুন বলেই মনে করছে পুলিশ। আর সেক্ষেত্রে বীভৎস নৃশংসভাবে খুন করেছে আততায়ীরা। খুনের পর হেলমেট পরা মুণ্ডটিই কেটে ফেলে তারা। মৃতের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে সূত্র খোঁজার চেষ্টা করছেন তদন্তকারীরা।