Hooghly: আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে হুগলি একাধিক জেলার ধান জমিতে

Hooghly: হুগলির তারকেশ্বর,ধনিয়াখালী,হরিপাল,সিঙ্গুর,জাঙ্গিপাড়া,চন্ডিতলা সহ একাধিক ব্লকে জমিতে নাড়া পোড়ানোর ছবি ধরা পড়েছে।

Hooghly: আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে হুগলি একাধিক জেলার ধান জমিতে
ধান জমি (নিজস্ব চিত্র)
TV9 Bangla Digital

| Edited By: অবন্তিকা প্রামাণিক

Nov 23, 2022 | 2:01 PM

হুগলি: দাউ-দাউ করে জ্বলছে ধান জমি। দিন হোক কী রাত। গোটা হুগলি জেলার একাংশে সর্বত্রই এক ছবি। নাহ! তবে আগুন ধরে গিয়েছে বলে ভুল ভাবার কারণ নেই। আসলে প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ধান জমিতে নাড়া পোড়াচ্ছেন এক শ্রেণির কৃষক।

মূলত, ধান কাটার পর তার গোড়াগুলিকে উপড়ে ফেলা হয়ে থাকে। তবে বিগত ৬ থেকে ৭ বছর ধরে হুগলি জেলার বিস্তর্ণ অঞ্চলের একাংশ কৃষক ওই গোড়াগুলি উপড়ে না ফেলে তা জমিতেই পুড়িয়ে দিচ্ছেন। শুধু হুগলি বলা ভুল গোটা রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় এই ছবি দেখতে পাওয়া যায়। জমির ভিতর গোড়াগুলিকে পুড়িয়ে দিলে একদিকে জমির উর্বরতা যেমন নষ্ট হয়, ঠিক তেমনই দূষণ হয় পরিবেশের। উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, পঞ্জাব সহ বিভিন্ন রাজ্যে এই চিত্র আগে দেখা যেত। তবে পরিবেশবিদ ও প্রশাসনের নির্দেশে তা বন্ধ হয়। কিন্তু বাংলায় যেন কিছুতেই এই পদ্ধতি বন্ধ করা যাচ্ছে না।

হুগলির তারকেশ্বর,ধনিয়াখালী,হরিপাল,সিঙ্গুর,জাঙ্গিপাড়া,চন্ডিতলা সহ একাধিক ব্লকে জমিতে নাড়া পোড়ানোর ছবি ধরা পড়েছে। পঞ্চায়েত, ব্লক ও জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে বার-বার সতর্ক করা হলেও কথা যেন কানে তুলছেন না ওই কৃষকরা। জমিতে নাড়া পুড়িয়েই চলেছেন তাঁরা। ফলে একদিকে জমির উর্বরতা যেমন নষ্ট হচ্ছে, অন্যদিকে জমিতে থাকা উপকারী জীবাণু নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। যার ফলে আগামী চাষের ক্ষেত্রে রাসায়নিক সারের ব্যবহার বেড়ে যাচ্ছে।

এই জেলা কৃষি দফর থেকে জানানো হয়েছে যে, কৃষকদের সতর্ক করা হচ্ছে। এরপরও অভিযোগ এলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জেলা কৃষি কর্মাধ্যক্ষ মনোজ চক্রবর্তী বলেন, ‘এতে পরিবেশ মাটি সব নষ্ট হচ্ছে। আমরা বারবার সতর্ক করেছি। তবে এখন কিছুটা কমেছে। আগে এর থেকেও বেশি হত।’ অপরদিকে, পুলিশ জানিয়েছে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েক জন কৃষকের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ হয়েছে। আইপিসি  ২৭৮  ধারায় মামলা রুজু করে তদন্ত চলছে।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla