Murder: মেয়ের প্রেমিককে নিমন্ত্রণে ডেকে খুনের অভিযোগ বাবার বিরুদ্ধে!

Malda: যুবককে শ্বাসরোধ করে মেরে বাড়ির কাছে আমবাগানে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল প্রেমিকার বাবার বিরুদ্ধে

Murder: মেয়ের প্রেমিককে নিমন্ত্রণে ডেকে খুনের অভিযোগ বাবার বিরুদ্ধে!
প্রেমিকার বাবার হাতে খুন যুবক! নিজস্ব চিত্র।

মালদহ:  মেয়ের সঙ্গে প্রতিবেশী যুবকের সম্পর্ক ছিল। সে কথা জানতে পেরে যুবককে প্রাণে মারার হুমকি দিয়েছিলেন প্রেমিকার বাবা। তার পর পালিয়ে পালিয়ে বেড়াতেন যুবক। কিন্তু ছক কষে তাঁকে বাড়িতে ডাকেন প্রেমিকার বাবা। তার পর শ্বাসরোধ করে মেরে বাড়ির কাছে আমবাগানে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল প্রেমিকার বাবার বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের ইংরেজবাজার থানার নদিয়া পঞ্চায়েতের লক্ষ্মীপুর ককলামারি গ্রামে।

সোমবার থেকেই নিখোঁজ ছিলেন টোটন মণ্ডল (২১)। মঙ্গলবার দুপুরে প্রেমিকার বাড়ির পিছনের আমবাগানের মধ্যে তাঁর নিথর দেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। পরে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

ঠিক কী ঘটেছে?

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত টোটন মণ্ডলের সঙ্গে প্রতিবেশী এক যুবতীর সম্পর্ক ছিল। সেটা প্রায় চার বছরের। তাঁদের প্রেম সম্পর্কের ব্যাপারে গ্রামের অধিকাংশ মানুষই জানতেন। ছেলের বাড়িতে এ নিয়ে তেমন আপত্তির কথা শোনা না গেলেও মেয়ের বাড়ি থেকে এই সম্পর্কে আপত্তি ছিল।

কিছুদিন আগে নাকি মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক জানতে পারেন বাবা সঞ্জয় মণ্ডল। তার পর থেকেই নাকি মেয়ের প্রেমিককে প্রাণে মারার হুমকি দেন সঞ্জয় ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। প্রেমিকার বাড়ির তরফে এমন হুমকি পেয়ে হকচকিয়ে যান যুবক। এ নিয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছিলেন টোটন।

মৃতের পরিবারের অভিযোগ, কিন্তু তার গত কয়েকদিন ধরে টোটন কে মেয়ের বাবা সহ পরিবারের লোকেরা প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে আসছিল। এই ভয়ে বাড়িছাড়া ছিল ছেলে। পরিবার সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, সোমবার গভীর রাতে হঠাৎ মেয়ের বাবা কথা বলতে চান টোটনের সঙ্গে। তাঁর বাড়িতেই ডেকে পাঠানো হয়। পরিবারের লোকেরা ভেবেছিলেন এবার হয়ত আলোচনার মাধ্যমে সুরাহা হবে।

আরও পড়ুন: TMC: বহিষ্কৃত তৃণমূল নেতাকে নিয়ে দুই বিধায়কের ইগোর লড়াই, প্রকাশ্যে উদয়ন বনাম জগদীশ গোষ্ঠীর দ্বন্দ্ব

কিন্তু টোটন বাড়ি ছাড়ার কিছুক্ষণ পরেই তাঁর মোবাইল ফোন সুইচ অফ পাওয়া যায়। তার পর মঙ্গলবার সকালে গ্রামের পাশে আমবাগানের পাশে তাঁর নিথর দেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। মৃতের দেহে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ও গলায় দড়ি পেঁচানোর দাগ পাওয়া গিয়েছে। টোটোনের পরিবারের অভিযোগ, তাঁকে পিটিয়ে খুন করে পরে আমবাগানে ঝুলিয়ে দিয়েছে সঞ্জয় মণ্ডলের পরিবারের লোকজন। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন: Women harassment: চা আনতে বাইরে বেরিয়েছিলেন ছেলে! ঘরের মধ্যে ঢুকে দেখলেন… 

আরও পড়ুন: Amtala Road Accident: নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লরি ঢুকে পড়ল দোকানে, মধ্যরাতে ভয়ঙ্কর ঘটনা আমতলায়

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla