Plassey: সিরাজউদ্দৌলার লড়াইকে সম্মান জানাতে পলাশীর স্মৃতি সৌধে হল অনুষ্ঠান

Plassey: সিরাজউদ্দৌলার লড়াইকে সম্মান জানাতে পলাশীর স্মৃতি সৌধে হল অনুষ্ঠান
পলাশীর স্মৃতিসৌধ

স্বাধীনতার পরে পলাশীর ওই প্রান্তরে তৈরি করা হয় স্মৃতিসৌধ। সেখানেই প্রতিবছর স্মরণ করা হয় পলাশী দিবস।

TV9 Bangla Digital

| Edited By: Angshuman Goswami

Jun 23, 2022 | 7:23 PM

পলাশী: ১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দের ২৩ জুন। ভারতবর্ষের ইতিহাসে এক অন্ধকারতম দিন। ওই দিনেই নদিয়ার পলাশীর প্রান্তরে পরাজিত হয়েছিল বাংলার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজউদ্দৌলা। তাঁর হারের মাধ্যমেই ভারতবর্ষে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসনের সূত্রপাত।  এর পর গোটা ভারতই চলে যায় ব্রিটিশদের অধীনে। প্রায় ২০০ বছরের পরাধীনতার বন্ধন কাটিয়ে ১৯৪৭ সালে স্বাধীন হয় ভারত। পলাশির যুদ্ধে সিরাজউদ্দৌলার লড়াইকে স্মরণ করে প্রতি বছরই সেখানে হয় শ্রদ্ধাজ্ঞাপন অনুষ্ঠান। এ বছর তার অন্য়থা হয়নি। স্থানীয়দের পাশাপাশি এই দিনে অনেক পর্যটকও আসেন ওই মনুমেন্ট দেখতে।

ব্রিটিশ ইস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানির দুর্গের সম্প্রসারণ বন্ধ করতেই বাংলার নবাবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি। সিরাজউদ্দৌলার বাহিনী বুক চিতিয়ে লড়াই করলেও তাঁর সেনাপতি মীরজাফরের বিশ্বাসঘাতকতায় পরাজিত হন নবাব। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি মীরজাফরকে বাংলার নবার ঘোষণার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। সেই লোভেই বিশ্বারঘাতকতা করেন মীরজাফর। এর পর বাংলায় নেমে আসে ব্রিটিশদের রাজত্ব।

এর পর স্বাধীনতার পরে পলাশীর ওই প্রান্তরে তৈরি করা হয় স্মৃতিসৌধ। সেখানেই প্রতিবছর স্মরণ করা হয় পলাশী দিবস। স্মৃতিচারণের পাশাপাশি সৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এলাকার মানুষ। ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশ থেকেও অনেক পর্যটক ২৩ জুন আসেন সেখানে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয় এই দিনে। নদিয়ার ঐতিহাসিক পলাশী মনুমেন্ট নামে পরিচিত সেই স্থানে বৃহস্পতিবার হল অনুষ্ঠান। প্রচুর মানুষ জড়ো হয়েছিলেন সেখানে।

প্রতি বছর এই দিনটি পালিত হয়। শুধু নদিয়াবাসী নয় ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রান্ত ছাড়াও বাংলাদেশ থেকেও বহু আজকের দিনে পর্যটন আসেন এই স্থানটিকে শ্রদ্ধা জানাতে।

Follow us on

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 BANGLA