June Malia: ‘দলের মধ্যে বিভাজনের চেষ্টা করছেন জুন’, বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূল নেতাদের

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: অবন্তিকা প্রামাণিক

Updated on: Jan 29, 2023 | 6:33 PM

June Malia: শনিবার বিকেলে মেদিনীপুর শহরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার প্রস্তুতি মিছিল ও সভার ডাক দেওয়া হয় ।

June Malia: 'দলের মধ্যে বিভাজনের চেষ্টা করছেন জুন', বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূল নেতাদের
পশ্চিম মেদিনীপুরে জুন মালিয়া (ছবি: ফেসবুক)


মেদিনীপুর: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) সভার আগেই শাসকদলের গোষ্ঠী কোন্দল মেদিনীপুরে (Medinipur)। বিধায়ক জুন মালিয়ার (June Malia) বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন মেদিনীপুর শহর তৃণমূলের সভাপতি বিশ্বনাথ পাণ্ডব। অভিযোগ, দলের মধ্যে বিভাজন করার চেষ্টা করছেন খোদ মেদিনীপুরের বিধায়ক। দলের কোনও কর্মসূচিতে যোগ দেন না তিনি। বিক্ষিপ্তভাবে কর্মসূচি হলেও ডাকা হয় না দলের শহর-সভাপতি থেকে অন্যান্যদের। একই দাবি করেছেন মেদিনীপুর পৌরসভার তৃণমূল কাউন্সিলর তথা মেদিনীপুর শহর সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি মজাম্মেল হোসেনও।

শনিবার বিকেলে মেদিনীপুর শহরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার প্রস্তুতি মিছিল ও সভার ডাক দেওয়া হয় । এই কর্মসূচিতে তৃণমূল বিধায়িক জুন মালিয়া সহ তাঁর অনুগামীরা উপস্থিত ছিলেন। তবে গড়হাজির ছিলেন জেলা সভাপতি, শহর সভাপতি সহ অন্যান্য তৃণমূল নেতৃত্ব। এরপরই মেদিনীপুর শহরের পানপাড়ায় দল বিরোধী কাজের জন্য বহিষ্কৃত এক তৃণমূল নেতার সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলতে দেখা যায় জুন মালিয়াকে।

এরপরই জুনের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উপরে দেন শহর সভাপতি সহ সংখ্যালঘু সেলের সভাপতি মজাম্মেল হোসেন। তৃণমূলের দাপুটে এই দুই নেতার চাঞ্চল্যকর অভিযোগে রীতিমত অস্বস্তিতে শাসক শিবির।
অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার পরেই সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করব বলে জানান মেদিনীপুর সাংগঠনিক জেলা তৃণমূলের সভাপতি সুজয় হাজরা। অন্যদিকে দু পক্ষের মধ্যে যে মতবিরোধ রয়েছে তা কার্যত মেনে নিয়েছেন মেদিনীপুর জেলার দায়িত্বে থাকা রাজ্য তৃণমূলের সম্পাদক প্রদ্যুৎ ঘোষ। মজাম্মেল হোসেন বলেন, “উনি কোনও কর্মসূচি করেন না। আর যদি করেনও তাহলে আমাদের ডাকেন না। উনি কেন ডাকেন না তা উনি বলতে পারবেন।” তৃণমূলের সভাপতি বিশ্বনাথ পাণ্ডব বলেন, “জুন মালিয়া আমার ওয়ার্ডে ঢুকলেন। এরপর গতবারের পৌর নির্বাচনে যিনি তৃণমূলকে হারানোর জন্য নির্দলে যোগ দিয়েছেন তাঁর সঙ্গে বসে চা খাচ্ছেন।” যদিও, এই বিষয়ে জুন মালিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি।

শাসকদলের এই গোষ্ঠী কোন্দল প্রকাশ্য আসার পর অবশ্য বিঁধতে ছাড়ছে না বিজেপি। জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি শংকর গুচ্ছাইতের দাবি, “বিলম্বিত বোধোদয় হচ্ছে তৃণমূল নেতাদের।”

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla