Russia Protest: পুতিনের নির্দেশের পরই রাশিয়া জুড়ে শুরু বিক্ষোভ, এক রাতেই আটক ৫০০-রও বেশি বিক্ষোভকারী

Russia Protest: সেনা গতিবিধি বাড়াতেই দেশের অন্দরে বিক্ষোভ শুরু হয়ে গিয়েছে। টেলিগ্রাম চ্যানেলে দেখা যায়, সেন্ট পিটার্সবার্গে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তাদের হাতে ধরা পোস্টারে লেখা, 'যুদ্ধ চাই না'।

Russia Protest: পুতিনের নির্দেশের পরই রাশিয়া জুড়ে শুরু বিক্ষোভ, এক রাতেই আটক ৫০০-রও বেশি বিক্ষোভকারী
বিক্ষোভকারীদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে পুলিশ।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Sep 22, 2022 | 9:46 AM

মস্কো: ধীরে ধীরে হাতছাড়া হচ্ছে ইউক্রেনের জমি। হুমকি দিচ্ছে পশ্চিমী দেশগুলিও। এই পরিস্থিতিতে এবার দেশের অন্দরেও  সেনা গতিবিধি শুরু করেছে রাশিয়া। আর সেনা গতিবিধি শুরু হতেই দেশের অন্দরে শুরু হয়েছে যুদ্ধ বিরোধী বিক্ষোভ। মস্কো সহ রাশিয়ার একাধিক শহরে বিক্ষোভ শুরু হতেই সেনাবাহিনীও ধরপাকড় শুরু করেছে। প্রায় ৫০০-রও বেশি বিক্ষোভকারীদের আটক করা হয়েছে।

বুধবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দেশের অন্দরে সামরিক গতিবিধির কথা ঘোষণা করেন। ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে আরও বেশি সংখ্যক সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। পশ্চিমী শক্তিগুলি রাশিয়ার ক্ষতি করতে চাইছে বলেই অভিযোগ করেন তিনি। টেলিভিশন ইন্টারভিউয়ে পুতিন  বলেন, “পশ্চিমী দেশগুলি রাশিয়াকে ধ্বংস করতে চায়। সেই কারণেই আংশিক সামরিক গতিবিধি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যারা আগে সশস্ত্র বাহিনীতে কাজ করেছেন বা সামরিক ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা ও পারদর্শিতা রয়েছে, তাদের সেনায় নিয়োগ করা হতে পারে। রাশিয়ার সীমান্ত ও ইউক্রেনে এই সেনাদের পাঠানো হবে”। পুতিন আরও বলেন, “আমাদের প্রধান লক্ষ্যই হল ইউক্রেনের ডনবাসকে স্বাধীন করা। এই অ়ঞ্চলের বাসিন্দারা ইউক্রেনের দাসত্বে থাকতে চান না।”

এদিকে, সেনা গতিবিধি বাড়াতেই দেশের অন্দরে বিক্ষোভ শুরু হয়ে গিয়েছে। টেলিগ্রাম চ্যানেলে দেখা যায়, সেন্ট পিটার্সবার্গে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তাদের হাতে ধরা পোস্টারে লেখা, ‘যুদ্ধ চাই না’। বিক্ষোভ শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই বিক্ষোভকারীদের লাঠি দিয়ে মারধর করতে দেখা যায় পুলিশকে। ইসাকিস্কিভ ক্য়াথেড্রাল চার্চের বাইরেও পুলিশকে ব্যারিকেড দিয়ে বিক্ষোভকারীদের আটকাতে দেখা যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া বিভিন্ন ভিডিয়ো দেখা গিয়েছে, রাশিয়ার একাধিক শহরেই যুদ্ধ বিরোধী বিক্ষোভ চলছে।

সবথেকে বেশি বিক্ষোভ হয়েছে মস্কোয়। সেখানে বিক্ষোভকারীদের কাঁধে করে নিয়ে যেতে দেখা যায় পুলিশকে। আরবাটস্কা, ইয়েকাটেরিংবার্গ, উলান-উডে, তোমাস্ক, উফা, পার্ম, বেলাগর্ড, মস্কো সহ একাধিক শহরেও বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় বাসিন্দারা। রাশিয়ার ৩০টি শহরে মোট ৫৩৫ জনকে আটক করা হয়েছে। গতকালই মস্কোর তরফে নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়, সেনার বিরুদ্ধাচারণ করলে ১৫ বছর অবধি কারাদণ্ডের সাজা দেওয়া হতে পারে।

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla