ভোটের আগেই বিক্ষুব্ধদের মন গলাতে রাজ্যে হাজির বিজেপি শীর্ষনেতৃত্ব

৪ এপ্রিল ত্রিপুরার উপজাতি অধ্যুষিত স্বশাসিত জেলা পরিষদের নির্বাচনের (TTAADC) আগেই ত্রিপুরা বিজেপি(BJP)-র দায়িত্বপ্রাপ্ত অধির্কতা বিনোদ কুমার সোনকার (Vinod Kumar Sonkar) দেখা করেন দলের বিক্ষুব্ধ নেতাদের সঙ্গে।

ভোটের আগেই বিক্ষুব্ধদের মন গলাতে রাজ্যে হাজির বিজেপি শীর্ষনেতৃত্ব
ফাইল চিত্র।

আগরতলা: দলীয়কর্মীদের মধ্যে বেড়েছে ক্ষোভ, নির্বাচনের আগেই তাই সমস্যা মেটাতে দিল্লি থেকে উড়ে আসলেন ত্রিপুরার বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত অধির্কতা বিনোদ কুমার সোনকার (Vinod Kumar Sonkar)। গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার তিনি দেখা করেন প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মন (Sudip Roy Barman) এবং বিধায়ক আশীষ দাস (Asish Das) ও সুশান্ত চৌধুরী(Sushant Choudhury)-র সঙ্গে। বৃহস্পতিবার রাতেই তিনি ফের দিল্লি ফিরে যান।

আগামী ৪ এপ্রিল ত্রিপুরার উপজাতি অধ্যুষিত স্বশাসিত জেলা পরিষদের নির্বাচন (TTAADC) হতে চলেছে। তার আগেই বহিষ্কৃত ও বিক্ষুব্ধ দলীয়কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে হাজির হন বিনোদ কুমার সোনকার। তিনদিন ধরে তিনি বিভিন্ন দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। দেখা করেন জনজাতি মোর্চার নেতাদের সঙ্গেও, আসন্ন নির্বাচনের প্রচার প্রক্রিয়া নিয়েও আলোচনা করেন তারা, এমনটাই সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন: ‘বাংলায় মমতার জন্য কোনও আসনই নিরাপদ নয়’, মন্তব্য দিলীপের

তবে রাজ্য সফরের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে সমঝোতায় আসা। ২০১৯ সালে দলবিরোধী কার্যকলাপের জন্য তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মনকে মন্ত্রীপদ থেকে বহিষ্কার করা হয়। এরপরই তিনি দলের বাকি বিক্ষুব্ধ বিধায়ক-নেতাদের নিয়ে দলে পরিবর্তন আনার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে শুরু করেন। বিগত দুই বছরে বিক্ষুব্ধ নেতারা একাধিকবার দিল্লি সফরে গেলেো শীর্ষনেতৃত্বদের তরফে খুব একটা উষ্ণ অভ্যর্থনা পাননি। তবে নির্বাচন সামনে আসতেই দিল্লি থেকেই তাঁদের সঙ্গে বোঝাপড়া করতে পাঠানো হল প্রতিনিধি।

সোনকার দিল্লি ফিরে যাওয়ার পর বিক্ষুব্ধদের বৈঠক সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে তাঁরা মুখ খুলতে অস্বীকার করেন। তাঁরা জানান, এটি সম্পূর্ণভাবেই দলের অভ্যন্তরের বিষয়। বৈঠকে কী আলোচনা হয়েছে, তা বলা সম্ভব নয়।

আরও পড়ুন: প্রতি পরতে রহস্য, এবার মিলল অম্বানীর বাড়ির সামনে উদ্ধার সন্দেহজনক গাড়ির মালিকের মৃতদেহ

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla