হোটেল সমস্যার চিরতরে সমাধান, বিপ্লব দেবের নাকের ডগায় তৈরি হচ্ছে তৃণমূল ভবন

সূত্রের খবর, হোটেলের সমস্যায় জেরবার হয়েই তৃণমূলের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে এ বার ত্রিপুরাতেই তৃণমূল ভবন তৈরি করা হবে। আগরতলার বুকেই এই কার্যালয় তৈরি করা হবে।

হোটেল সমস্যার চিরতরে সমাধান, বিপ্লব দেবের নাকের ডগায় তৈরি হচ্ছে তৃণমূল ভবন
ফাইল চিত্র।

আগরতলা:  রাজ্য স্তর থেকে এ বার জাতীয় স্তরে জায়গা করে নিতে উঠেপড়ে লেগেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক আসনে জয়লাভের পরই তৃণমূল পাখির নজর বানিয়েছে প্রতিবেশী রাজ্য় ত্রিপুরাকে। সেখানে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনেই তারা জয়লাভ করবে বলে আশাবাদী। সেই কারণেই ঘনঘন ত্রিপুরা সফরে যাচ্ছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। কিন্তু সেখানেও হোটেল পাওয়া নিয়ে সমস্যা নিত্যদিন সমস্যায় পড়ছেন তারা। তাই এ বার প্রতিবেশী রাজ্যেই তৃণমূল ভবন তৈরি করা হবে।

বিগত দুই মাস ধরেই ঘনঘন ত্রিপুরাই দ্বিতীয় বাড়ি হয়ে উঠেছে তৃণমূলের। কখনও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, কখনও আবার ব্রাত্য বসু, দোলা সেন কিংবা সুদীপ রাহা, দেবাংশু ভট্টাচার্যের মতো যুবনেতারা ত্রিপুরায় গিয়েছেন। কিন্তু প্রতিবারই বিরোধিতার মুখে পড়তে হয়েছে তাদের। পথ অবরোধ থেকে দলীয় কর্মসূচির মাঝে হামলা, এই ধরনের নানা ঘটনা ঘটেছে। একইসঙ্গে হোটেলের সমস্যাও রয়েছে।

গত সপ্তাহেই ত্রিপুরা গিয়েছিলেন তৃণমূলের যুবনেত্রী সায়নী ঘোষ। সেখানে আগরতলায় যে হোটেলে ছিলেন তিনি, রাতে সেই হোটেলের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি। পরেরদিন সকালেই তাদের হোটেল ছেড়ে দিতে হয় বলে অভিযোগ। আগামিদিনেও তৃণমূলের প্রতিনিধি দলকে যাতে কোনও হোটেলে রুম না দেওয়া হয়, তার নির্দেশ দিয়েছে বিজেপি, এমনটাই তৃণমূলের অভিযোগ।

সূত্রের খবর, হোটেলের সমস্যায় জেরবার হয়েই তৃণমূলের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে এ বার ত্রিপুরাতেই তৃণমূল ভবন তৈরি করা হবে। আগরতলার বুকেই এই কার্যালয় তৈরি করা হবে। আগামী মাসেই নতুন তৃণমূল ভবনের উদ্বোধনে ফের ত্রিপুরা যেতে পারেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ত্রিপুরায় আইপ্যাকের টিমকে হোটেলে আটকে রাখার মধ্যে দিয়ে বিরোধের শুরু হয়। তারপর তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ত্রিপুরা সফরে গেলে সেখানেও তাঁর পথ আটকে বিক্ষোভ দেখায় স্কুল পড়ুয়ারা। তাঁর গাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগও ওঠে।

কয়েকদিন আগে ত্রিপুরায় দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়ে আক্রান্ত হন তৃণমূল কংগ্রেসের যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহা এবং জয়া দত্ত। সেই ঘটনাকে ঘিরে তোলপাড় শুরু হয়। বিজেপির বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ করে তৃণমূল, পাল্টা বিজেপির তরফেও রাজ্যে ইচ্ছাকৃতভাবে অশান্তি সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়। এ দিকে, ওই ঘটনার পরই গ্রেফতার করা হয় তিন যুব নেতা-সহ তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতাকর্মীকে। স্বাধীনতা দিবসে ফের একবার তৃণমূল কংগ্রেসের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে। গাড়ি ঘিরে ব্যাপক ভাঙচুর চলে বলে অভিযোগ। দোলা সেন, অপরূপা পোদ্দারের গাডির উপর হামলা, এমনকি সাংসদ অপরূপা পোদ্দারের ব্যাগ, মোবাইল ছিনতাই করার অভিযোগও ওঠেন। এ দিনও সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া সুস্মিতা দেব ও শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু ত্রিপুরায় গিয়েছেন। আরও পডুন: লক্ষ লক্ষ ভারতীয়ের আয়ু একধাক্কায় কমতে পারে ৯ বছর! প্রকাশ্যে এল উদ্বেগজনক রিপোর্ট 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla