Weather Updates: উধাও শীতের সোনালি রোদ, দিনভর বৃষ্টি কলকাতা-সহ দক্ষিণের জেলায়

Kolkata: হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকবে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ, স্বাভাবিকের থেকে প্রায় তিন ডিগ্রি বেশি

Weather Updates: উধাও শীতের সোনালি রোদ, দিনভর  বৃষ্টি কলকাতা-সহ দক্ষিণের জেলায়
শীতেও বৃষ্টি, নিজস্ব চিত্র

কলকাতা: শীতের (Winter) দেখা নেই। আকাশে ফের কালো মেঘের ভিড়। পৌষেও অকালবর্ষণের হাত থেকে রেহাই মেলেনি। আলিপুর হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, শুক্রবার দিনভর কলকাতা-সহ দক্ষিণের জেলাগুলিতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের  (Rainfall) সম্ভাবনা রয়েছে। উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলাতেও হতে পারে বৃষ্টিপাত।

হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকবে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অর্থাৎ, স্বাভাবিকের থেকে প্রায় তিন ডিগ্রি বেশি। কলকাতা-সহ দক্ষিণের জেলাগুলিতে বৃষ্টি তো হবেই, এছাড়াও,  দার্জিলিঙ, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ারেও বৃষ্টি হতে পারে। তবে, দুই দিনাজপুর, মালদা, কুচবিহারে শুষ্ক আবহাওয়া থাকবে। আগামী রবিবার থেকে ধীরে ধীরে বদলাতে শুরু করবে আবহাওয়া। শনিবার, কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা সেভাবে নেই। এরপর ফের ১৬ জানুয়ারি থেকে আবহাওয়ার পরিবর্তন হবে। সেদিন থেকেই মোটামুটি রোদের দেখা মিলবে।

আবহবিদরা বলছেন, জাঁকিয়ে শীতের আশা নেই জানুয়ারিতেও। কারণ, পরপর তিনটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝার আগমন। আগামিকাল, ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে। অন্যদিকে, পশ্চিমী ঝঞ্ঝার প্রভাবে এই  বৃষ্টিপাতের জেরে উত্তরের জেলাগুলিতেও  শিলাবৃ্ষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। মাসের তৃতীয় সপ্তাহে ফের হতে পারে পারদ পতন। তবে, তার আগে শীত আসার কোনও সম্ভাবনা নেই।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাঞ্চলীয় অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দোপাধ্যায় বলেন, “মঙ্গলবার থেকে বৃষ্টি শুরু হয়েছে পশ্চিমের জেলাগুলিতে। কলকাতা-সহ রাজ্য জুড়ে বৃষ্টি হবে। মূলত হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে। উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ কম হবে। দার্জিলিং, কালিম্পয়ে শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।” একইসঙ্গে সঞ্জীব বন্দোপাধ্যায় বলেন, “শুক্রবার হালকা বৃষ্টি  দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সমস্ত জেলাতেই। আজও বৃষ্টি থাকবে তবে ১২ তারিখের তুলনায় কমবে দাপট। রাত থেকে বৃষ্টি শুরু হবে পুরুলিয়া, বাঁকুড়ায়।”

পরপর তিনটি ঝঞ্ঝার চাপে বাধা পাচ্ছে উত্তুরে বাতাস। সঙ্গে বঙ্গোপাসাগরে তৈরি হওয়া প্রচুর জ্বলীয় বাষ্প। এই দুয়ের মিশেলেই মূলত বঙ্গে বৃষ্টি। আবহবিদরা জানাচ্ছেন, তিনটি ঝঞ্ঝার মধ্যে সময়ের বিশেষ পার্থক্য না থাকায় পারদপতন যেমন স্তব্ধ তেমনই, বৃষ্টির ভোগান্তিও রয়েছে। যদিও, ১৮ তারিখের পর পারদ পতনের সম্ভবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন: School Service Commission: সরিয়ে দেওয়া হোক SSC চেয়ারম্যানকে, রাজ্যকে পরামর্শ হাইকোর্টের

আরও পড়ুন: Anubrata Mondal on Suvendu Adhikari: ‘নেংটি ইঁদুর একটা, চুরি করে জিতে আবার বড় বড় কথা!’ 

আরও পড়ুন: Asansol Municipal Election 2022: ‘চালাকির রাজনীতি! ওঁ মন রাখছেন আর পিসি ভোট করাচ্ছেন

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla