অ্যান্টি এজিং ট্রিটমেন্টের সঠিক বয়স কী; কীভাবে রুখবেন বলিরেখার আগমন?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বলিরেখা হওয়ার কোনও নির্দিষ্ট বয়স নেই। চামড়ায় প্রথম ভাঁজ পড়লেই জানবেন সময় হয়েছে বার্ধক্যের।

অ্যান্টি এজিং ট্রিটমেন্টের সঠিক বয়স কী; কীভাবে রুখবেন বলিরেখার আগমন?
প্রতীকী ছবি (সৌ: ফেসবুক)

বয়স কখনও কমে না। কিন্তু অনেকেই কমপ্লিমেন্ট পান—”তোমার বয়স তো দিন দিন কমছে!”। আসল বিষয়টা একটু অন্যরকম। বরস বাড়ার সঙ্গে হয়তো বাড়ছে না বার্ধক্য। ত্বকে প্রকট হচ্ছে না বলিরেখা। এটা তো নির্দ্ধিধায় ক্রেডিট। কীভাবে এমনটা সম্ভব?

একটা সময় মনে করা হত, ৩০ বছর পেরলেই নাকি ত্বকে দেখা দিতে শুরু করে বলিরেখা। নানাধরনের দাগ ছোপ দেখা দিতে শুরু করে তখন। কিন্তু এখন বিশেষজ্ঞরা বলছেন অন্য কথা। তাঁরা বলছেন, বলিরেখা হওয়ার কোনও নির্দিষ্ট বয়স নেই। চামড়ায় প্রথম ভাঁজ পড়লেই জানবেন সময় হয়েছে বার্ধক্যের। ঘরোয়া কিছু নিয়ম মানলে বলিরেখা রোধ করা যায়। ২০ বছর বয়স থেকেই নিয়ম মানতে শুরু করে দিন।

১. পাকা কলা চটকে তাতে মেশান টক দই। দু’চামচ মধু মেশান। মুখে লাগিয়ে রাখুন। ১০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করার পর তুলে ফেলুন। কলায় আছে অ্যান্টি-এজিং উপাদান ও ভিটামিন। সপ্তাহে দু’দিন ব্যবহার করুন।

২. ১০টি কাঠ বাদাম দুধে ভিজিয়ে রাখুন সারারাত। বাদাম তুলে নিয়ে মিক্সিতে পেস্ট করুন। তাতে যোগ করুন সামান্য দুধ। মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকে আছে ভিটামিন ই, ফলিক অ্যাসিড, ওয়েইক অ্যাসিড, হাইড্রক্সি অ্যাসিড, জিঙ্ক এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস। বলিরেখা রোধ করে এই প্যাক।

৩. টমেটোর জুস ত্বকের বলিরেখা রুখতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। ত্বক টাইট রাখে। সপ্তাহে দু’বার লাগান। লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট রেখে দিন।

আরও পড়ুনদুধ, বেসন, হলুদেই লুকিয়ে আপনার সৌন্দর্যের রাজ

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla