River erosion: বাঁধ নয়, এবার নদীর ভাঙন রুখতে জোর ভেটিভার চাষে! রইল ছবি…

Vetivar cultivation: ভেটিভার চাষ কী? জানুন...

1/5
কয়েকদিন আগেই হয়েছে বন্যা। সেই বন্যায় ভেসে গিয়েছে সব কিছু। নদীর পাড়ের বাড়িগলো রীতিমতো ধুলিস্যাৎ হয়ে গিয়েছে। বারবার প্রশাসনের কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল বাঁধ তৈরির। তবে তার আগে পাকাপাকিভাবে ব্যবস্থা নিতে ভেটিভার চাষে জোর দিল ব্লক প্রশাসন। ৮ কিলোমিটার নদী পাড় জুড়ে চলছে জোর কদমে ভেটিভার লাগানোর কাজ। একশো দিনের প্রকল্পকে কাজে লাগিয়ে প্রায় ২৮ লক্ষ টাকা খরচা করে ভেটিভার লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে।
কয়েকদিন আগেই হয়েছে বন্যা। সেই বন্যায় ভেসে গিয়েছে সব কিছু। নদীর পাড়ের বাড়িগলো রীতিমতো ধুলিস্যাৎ হয়ে গিয়েছে। বারবার প্রশাসনের কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল বাঁধ তৈরির। তবে তার আগে পাকাপাকিভাবে ব্যবস্থা নিতে ভেটিভার চাষে জোর দিল ব্লক প্রশাসন। ৮ কিলোমিটার নদী পাড় জুড়ে চলছে জোর কদমে ভেটিভার লাগানোর কাজ। একশো দিনের প্রকল্পকে কাজে লাগিয়ে প্রায় ২৮ লক্ষ টাকা খরচা করে ভেটিভার লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে।
2/5
ভেটিভার কী?ভেটিভার একটি বিশেষ প্রজাতির ঘাস।
ভেটিভার কী?ভেটিভার একটি বিশেষ প্রজাতির ঘাস।
3/5
ভেটিভারের কাজ কী? অল্প সময়ের মধ্যে এই ভেটিভার ঘাসের শিকড় মাটির অনেক গভীর পর্যন্ত পৌঁছতে পারে এবং বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। যার জেরে নদীর পাড়ের মাটিকে শক্ত করে আঁকড়ে ধরে রাখতে সাহায্য করে। ফলে নদীর ভাঙন রোধ করা অনেকটাই সম্ভব হয়।
ভেটিভারের কাজ কী? অল্প সময়ের মধ্যে এই ভেটিভার ঘাসের শিকড় মাটির অনেক গভীর পর্যন্ত পৌঁছতে পারে এবং বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। যার জেরে নদীর পাড়ের মাটিকে শক্ত করে আঁকড়ে ধরে রাখতে সাহায্য করে। ফলে নদীর ভাঙন রোধ করা অনেকটাই সম্ভব হয়।
4/5
আগে ভেটিভারের চাষ এলাকায় হত না এলকায়। অন্য জেলা থেকে ভেটিভার চারা নিয়ে আসা হতো। বর্তমানে ঘাটাল মহকুমায় চাষ হচ্ছে ভেটিভার চারা। একটি ভেটিভার  চারা ১ টাকা ৫০ পয়সা দামে কিনতে হচ্ছে।
আগে ভেটিভারের চাষ এলাকায় হত না এলকায়। অন্য জেলা থেকে ভেটিভার চারা নিয়ে আসা হতো। বর্তমানে ঘাটাল মহকুমায় চাষ হচ্ছে ভেটিভার চারা। একটি ভেটিভার চারা ১ টাকা ৫০ পয়সা দামে কিনতে হচ্ছে।
5/5
চন্দ্রকোনার উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে শিলাবতী ও কেঠিয়া নদি। এই দুই খরস্রোতা নদীতে বর্ষার সময় প্রবল জলের চাপে প্লাবিত হয় চন্দ্রকোনার বিস্তীর্ণ এলাকা। এই বছর মোট চারবার বন্যার জলে প্লাবিত হয়েছে চন্দকোনার বিস্তীর্ণ এলাকা। নদীগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে বহু বাড়ি থেকে চাষ জমি। সেই কারণে নদী ভাঙন রুখতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে চন্দ্রকোনা ২ ব্লক প্রশাসন। সূত্রে খবর, ভগবন্তপুর এক ও দুই গ্রাম পঞ্চায়েত, বান্দিপুর ১ ও ২ গ্রাম পঞ্চায়েত ও বসনছড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বিস্তীর্ণ এলাকায় শিলাবতী ও কেটিয়া নদীর পাড়ে ভাঙন রোধে লাগানো হচ্ছে ভিটিভার।
চন্দ্রকোনার উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে শিলাবতী ও কেঠিয়া নদি। এই দুই খরস্রোতা নদীতে বর্ষার সময় প্রবল জলের চাপে প্লাবিত হয় চন্দ্রকোনার বিস্তীর্ণ এলাকা। এই বছর মোট চারবার বন্যার জলে প্লাবিত হয়েছে চন্দকোনার বিস্তীর্ণ এলাকা। নদীগর্ভে তলিয়ে গিয়েছে বহু বাড়ি থেকে চাষ জমি। সেই কারণে নদী ভাঙন রুখতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে চন্দ্রকোনা ২ ব্লক প্রশাসন। সূত্রে খবর, ভগবন্তপুর এক ও দুই গ্রাম পঞ্চায়েত, বান্দিপুর ১ ও ২ গ্রাম পঞ্চায়েত ও বসনছড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বিস্তীর্ণ এলাকায় শিলাবতী ও কেটিয়া নদীর পাড়ে ভাঙন রোধে লাগানো হচ্ছে ভিটিভার।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla