Police Officer Death: ষষ্ঠীর দিন বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন, প্রায় দেড়মাস পর উদ্ধার পুলিশ অফিসারের নিথর দেহ

Hooghly: স্ত্রীয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো ছিল না তার এমনটাই অভিযোগ।

Police Officer Death: ষষ্ঠীর দিন বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন, প্রায় দেড়মাস পর উদ্ধার পুলিশ অফিসারের নিথর দেহ
নিখোঁজ সাব-ইন্সপেক্টর (নিজস্ব ছবি)

বেলুড়: ষষ্ঠীর দিন বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। কিন্তু কে জানত এরপর আর ফেরা হবে না। প্রায় দেড় মাস পর উদ্ধার হল পুলিশ অফিসারের দেহ। ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই শোকের ছায়া গোটা পরিবারে।

মৃত ওই পুলিশ অফিসারের নাম পার্থ চৌধুরি (৪৬)। তিনি রাজারহাট থানার সাব ইন্সপেক্টর পদে নিযুক্ত ছিলেন। গত ১১ অক্টোবর থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

Face book post

সোশ্যাল মিডিয়ায়ও নিখোঁজ পুলিশ অফিসারের উদ্দেশে পোস্ট দেওয়া হয়

সূত্রের খবর, পার্থ চৌধুরির মা ও ভাই থাকতেন চুঁচুড়া রবীন্দ্রনগরে। অন্যদিকে, স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে থাকাতেন বেলুড়ের আবাসনে। দুর্গাপুজোর ষষ্ঠীর দিন রোজের মতোই বাড়ি থেকে বের হন তিনি। কিন্তু বাড়ি ফেরেন না। পরিবারের তরফ থেকে শুরু হয় খোঁজাখুজি। এরপরও খোঁজ না পেয়ে থানায় মিলিং ডায়রি করা হয়। পরে ছেলেকে খুঁজে দেওয়ার আবেদন জানিয়ে সংবাদপত্রেও বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন তাঁর মা। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও ছবি দিয়ে তাঁর সহকর্মীরা তাঁকে খুঁজে দেওয়ার আবেদন জানাতে থাকেন।

এইভাবেই দোলাচলে কেটে যায় প্রায় দেড়মাস। এরপর গত ২০ অক্টোবর বালির পদ্মবাবু রোডের একটি পরিত্যক্ত জায়গায় থেকে একটি দেহ উদ্ধার করে বালি থানার পুলিশ। জানা যায়, মৃতদেহটি সেখানে প্রায় তিনদিন ধরে পড়েছিল। এরপর ওই দেহটি পাঠানো হয় হাওড়া পুলিশ মর্গে। এদিকে, নিখোঁজ অফিসারের তদন্ত জারি রেখেছিল রাজারহাট থানার পুলিশ। তদন্ত নেমে তারা বিভিন্ন থানায় যে সকল অজ্ঞাত পরিচয়ের মৃতদেহ গুলি রয়েছে তা খতিয়ে দেখতে শুরু করে। সেই সময়ই নিউটাউন থানার পুলিশের হাতে আসে পার্থ চৌধুরির নিথর দেহ।

খবর দেওয়া হয় তার পরিবারকে। পরিবার এসে শনাক্ত করে মৃতদেহটি। তবে কীভাবে মৃত্যু হল ওই সাব-ইন্সপেক্টরের তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াসা। ঘটনার বিষয়ে কোনও মুখ খোলেননি পরিবারের সদস্যরা। এই ঘটনার পরই কোদালিয়া-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বিদ্যুৎ বিশ্বাস পরিবারকে সমবেদনা জানাতে যান।

প্রধান বলেন, “পার্থ চৌধুরি আমাদের অঞ্চলের বাসিন্দা ছিলেন। কর্মসূত্রে রাজারহাট থানায় কর্মরত ছিলেন। ১১ তারিখ থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। বিভিন্ন থানায় ডায়রি করা হয়। এরপর গতকাল রাতে ফোন আসে। ওই মৃতদেহটি শনাক্ত করতে যায় তার পরিবারের লোকজন। তাঁরা শনাক্ত করে পার্থ চৌধুরির মরদেহ। আমরা জানতে পেরেছি যে স্ট্রোক হয়েই প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।সেই কারণেই এই পরিবারের পাশে সমবেদনা জানাতে আমরা এখানে এসেছি।” এরপর পাশাপাশি তিনি আরও জানান, “পার্থবাবু অত্যাচরিত ছিলেন। মানসিক ভাবেও তিনি বিপর্যস্ত ছিলেন। হয়ত সেই কারণেই এই ঘটনা। তবে আসল কারণ এখনও জানি না।”

আরও পড়ুন: Mukul Roy in Assembly: পিএসি বৈঠকে যোগ দিতে বিধানসভায় মুকুল, বললেন ‘ডেকেছে, এসেছি’

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla