‘বঞ্চিত উত্তরবঙ্গ’, পৃথক রাজ্যের দাবিতে সোচ্চার শীতলকুচির বিজেপি বিধায়ক

BJP: পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে এর আগে সরব হয়েছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ তথা বিজেপি প্রতিমন্ত্রী জন বার্লা। তাঁর সুরে সুর মিলিয়েছিলেন উত্তরবঙ্গের মাটিগাড়া-নকশালবাড়ির বিজেপি বিধায়ক আনন্দময় বর্মন ও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ির বিধায়ক শিখা চট্টোপাধ্যায়।

'বঞ্চিত উত্তরবঙ্গ', পৃথক রাজ্যের দাবিতে সোচ্চার শীতলকুচির বিজেপি বিধায়ক
বিজেপি বিধায়ক বরেন চন্দ্র বর্মণ, নিজস্ব চিত্র

কোচবিহার: জন বার্লা, শিখা চট্টোপাধ্যায়, আনন্দময় বর্মনের পর বরেন চন্দ্র বর্মণ। ফের উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল ঘোষণা করার দাবি তুললেন শীতলকুচির বিজেপি বিধায়ক।

শনিবার, শীতলকুচির বিধায়ক বলেন, “উত্তরবঙ্গে এত বছরে কোনও উন্নয়ন হয়নি। এখানে একটা ভাল হাসপাতাল নেই। ডাক্তার নেই। চিকিত্‍সা নেই। একটা ভাল কলেজ তৈরি হয়নি। উত্তরবঙ্গের মানুষ বঞ্চিত। ফলে পৃথক রাজ্য হোক। মানুষের জন্য কাজ হোক।” তাঁর অভিযোগ, বঞ্চনার থেকে রেহাই পেতেই এই দাবিকে সমর্থন। যদিও, বিধায়কের এই দাবিকে সমর্থন করেনি বিজেপি নেতৃত্ব।

বিধায়ক আরও বলেন, “সাংসদ জন বাড়লা যে দাবি তুলে ধরেছেন সেটি সাধারণ মানুষের দাবী । আমরা উত্তরবঙ্গের মানুষের এই দাবি কে সমর্থন করি।” গেরুয়া শিবিরের তরফে পৃথক উত্তরবঙ্গ প্রসঙ্গে দলের অবস্থান আগেই স্পষ্ট করেছেন বিজেপি রাজ্য় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি স্পষ্টই বলেছিলেন বাংলা ভাগের পক্ষে নয় বিজেপি। প্রশ্ন উঠছে এরপরেও কী করে এই দাবিকে সমর্থন করে মন্তব্য করেন বিজেপি বিধায়ক? অন্যদিকে, এ প্রসঙ্গে শনিবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “বিজেপ এই দাবিকে সমর্থন করে না। তবে, এই দাবির জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দায়ী। কেন আলাদা রাজ্য়ের দাবি উঠছে তা মুখ্য়মন্ত্রীকে জিজ্ঞেস করুন।”

প্রসঙ্গত, পৃথক রাজ্যের দাবি জানিয়ে এর আগে সরব হয়েছিলেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ তথা বিজেপি প্রতিমন্ত্রী জন বার্লা। তাঁর সুরে সুর মিলিয়েছিলেন উত্তরবঙ্গের মাটিগাড়া-নকশালবাড়ির বিজেপি বিধায়ক আনন্দময় বর্মন ও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ির বিধায়ক শিখা চট্টোপাধ্যায়। এ বার সেই তালিকায় শীতলকুচির বিধায়ক। নির্বাচন আবহে এই শীতলকুচিতেই  গুলিকাণ্ডের জেরে তুঙ্গে উঠেছিল শাসক-বিরোধী তরজা। সেই শীতলকুচির বিধায়কের মুখে এ বার পৃথক রাজ্যের দাবি শুনে তৃণমূল জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় বলেন, “বিজেপি ডুয়েল গেম খেলছে । একদিকে উত্তরের নেতারা বলছেন উত্তরবঙ্গ ভাগ চাই । ওপর দিকে রাজ্য ও কেন্দ্রের নেতারা উল্টো কথা বলছেন । বিজেপির উচিত অবস্থান স্পষ্ট করা । আসলে উত্তরবঙ্গে অশান্তি পাকানোর জন্যেই এসব করছে বিজেপি।” আরও পড়ুন: ৮ বছর পর মিলল বিচার! সংগ্রামপুর বিষমদ-কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত খোঁড়া বাদশা, বেকসুর খালাস স্ত্রী

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla