Jalpaiguri: ঝড়ের গতিতে চলছিল গাড়ি, তল্লাশি চালাতেই উদ্ধার বিপুল পরিমাণ গাঁজা! গ্রেফতার মহিলা সহ ৩

youth Arrested: পরে তল্লাশি চালাতেই গাড়ি থেকে মেলে প্রায় ১৫ কেজির গাঁজা।

Jalpaiguri: ঝড়ের গতিতে চলছিল গাড়ি, তল্লাশি চালাতেই উদ্ধার বিপুল পরিমাণ গাঁজা! গ্রেফতার মহিলা সহ ৩
বাজেয়াপ্ত হওয়া গাড়ি

জলপাইগুড়ি: একটি বিলাশ বহুল গাড়ি। অত্যন্ত দ্রুত গতিতে ছুটে চলেছে সেটি। আর তার ভিতরে রয়েছেন এক মহিলা ও তিন যুবক। পরে পুলিশ তল্লাশি চালাতেই এল আসল ঘটনা সামনে।উদ্ধার হল গাঁজা।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার সন্ধে নাগাদ নিজেদের সূত্র মারফৎ খবর পেয়ে গোশালা মোড়ের জাতীয় সড়কে নজরদারি শুরু করে পুলিশ। সেই সময় ওই গাড়িটিকে হাত দেখিয়ে দাঁড় করায় তাঁরা। প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ ও পরে তল্লাশি চালাতেই গাড়ি থেকে মেলে প্রায় ১৫ কেজির গাঁজা। এরপরই ওই ছোটো গাড়িটিকে বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ।

drug

উদ্ধার হওয়া গাঁজা

সূত্রের খবর, ওই গাড়িটি শিলং থেকে বিহারে যাচ্ছিলো। ঘটনায় তিন যুবক ও এক মহিলাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুরু হয়েছে তদন্ত।

এদিকে, গতকাল এক মাদক পাচারকারীকে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠানে। জানা যায় ওই ব্যক্তি স্থানীয় তৃণমূল নেতা। পুলিশের জালে ধরাও পড়েছিলেন তিনি। সেই নেতাই আবার উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুষ্ঠানে। তাও আবার ভিআইপি কার্ডে। সেই বিষয়টিকেই ইস্যু করল বিজেপি। ঘটনার তদন্তে এবার কেন্দ্রীয় সরকারের নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর হস্তক্ষেপ দাবি জানাল বিজেপি।

গত ২১ অক্টোবর ৬০ লক্ষ টাকার মাদক পাচার করতে গিয়ে শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন যুব তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক কৌস্তভ তলাপাত্র। তাঁর সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় আরও তিন জনকে। পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে ২২ শে অক্টোবর আদালতে পেশ করে। এই খবর চাউর হতেই রাজনৈতিক মহলে আলোড়ন পড়ে যায়। অস্বস্তিতে পড়ে তৃণমূল নেতৃত্ব।

ঘটনায় যুব তৃণমূলের জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায় সংবাদ মাধ্যমে বিবৃতি দেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করায় গত ৩ বছর আগে যুব তৃণমুল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে কৌস্তভকে। কৌস্তভ তলাপাত্রর সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই। সৈকত চট্টোপাধ্যায়ের এই বক্তব্য মিথ্যা, পাল্টা দাবি করে বিজেপি।

বিষয়টি প্রমাণ-সহ তুলে ধরতে সোমবার দুপুরে বিজেপির জেলা কার্যালয়ে একটি0 সাংবাদিক সম্মেলন করেন বিজেপির জেলা সভাপতি বাপী গোস্বামী। তিনি দাবী করেন, গত কয়েক বছরে তৃণমূলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে তাঁকে দেখা গিয়েছে। গত ২০২০ সালে মার্চ মাসে বাংলার গর্ব মমতা এই কর্মসূচি লঞ্চিং অনুষ্ঠানের ভিআইপি আমন্ত্রণপত্রে তাঁর নাম ছিল।

তাই এই ঘটনার পেছনে আরও অনেক তৃণমূল নেতা জড়িত রয়েছে বলে দাবি বিজেপির। বিজেপির বক্তব্য, কৌস্তুভ তলাপাত্রর আর্থিক পরিস্থিতি এতটা স্বচ্ছল নয়, যে তিনি নিজে ৬০ লক্ষ টাকা দিয়ে ব্রাউন সুগার কিনে তা বিক্রি করতে পারেন৷ এর পেছনে তৃণমূলের বেশ কয়েক জন নেতা জড়িত, যাঁরা অর্থের সংস্থার জুগিয়েছেন বলে দাবি বিজেপির। ঘটনার পূর্নাঙ্গ তদন্তের স্বার্থে নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর হস্তক্ষেপ দাবি করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন: Bardhaman: টোটো থেকে নেমে যেতে বলায় কাঁচি দিয়ে চালকের উপর একের পর আঘাত নেশাখোরদের

 

 

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla