Babul Supriyo: সাংসদ পদ ছাড়ার আগে ফেসবুকে দিলেন সব ‘ট্রোলের’ জবাব!

Babul Supriyo: বাকি পড়ে থাকা ওই ২ কোটিও মঞ্জুর করে দিলেন আসানসোলের সাংসদ। বাবুল সুপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে জানিয়েছেন, পুরোটাই আসানসোলের বিস্তীর্ণ এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ।

Babul Supriyo: সাংসদ পদ ছাড়ার আগে ফেসবুকে দিলেন সব 'ট্রোলের' জবাব!
সাংসদ পদ থেকে ইস্তফার আগে আসানসোলের জন্য অর্থ বরাদ্দ (ফাইল ছবি)


আসানসোল: সাংসদ পদ ছাড়ার আগেই চলতি আর্থিক বছরের বাকি পড়ে থাকা সাংসদ তহবিলের ২ কোটি ২০ লাখ টাকাও মঞ্জুর করলেন বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। ‘মানুষের টাকার হিসেব মানুষকেই দিলাম’ ফেসবুকে পোস্ট করলেন তিনি।

এমপিল্যাডের প্যাডে বরাদ্দ অর্থের তালিকা প্রকাশ করেন বাবুল সুপ্রিয়। এর জন্য অবশ্য নেটপাড়ায় ট্রোলের মুখেও পড়তে হয় তাঁকে। কিন্তু সেই সমস্ত ট্রোলের জবাব কমেন্টবক্সে সরাসরি দেন। স্পষ্ট জানিয়ে দেন, দু’বারের সাংসদ পদে জয়ী হওয়ার পরেও তাঁর পরিশ্রমের কদর করেনি ভারতীয় জনতা পার্টি। উল্টে নির্মমভাবে মন ভেঙে দিয়েছে তাঁর।

পাশাপাশি জানিয়েছেন, “একশ্রেণির মানুষ যতই কটু কথা বলুক, যেখানেই থাকব আসানসোলের উন্নয়নের জন্য যতটা করা যেতে পারে, করব।” আসানসোলের উন্নয়নের জন্য প্রতি বছর সাংসদ তহবিলে মোট ৫ কোটি টাকা করে বরাদ্দ থাকে। তার মধ্যে তিনি আগেই ৩ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করেছিলেন।


বাকি পড়ে থাকা ওই ২ কোটিও মঞ্জুর করে দিলেন আসানসোলের সাংসদ। বাবুল সুপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে জানিয়েছেন, পুরোটাই আসানসোলের বিস্তীর্ণ এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, জেলাপ্রশাসন এই কাজগুলি আসানসোল পুরনিগম ও আসানসোল দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদের মাধ্যমে দ্রুত সম্পন্ন করাবেন।

জেলাশাসকের সঙ্গে এই নিয়ে তিনি কথা বলে নেবেন বলে জানিয়েছেন। জানা গিয়েছে, আসানসোল উত্তর, কুলটি, জামুড়িয়া, পাণ্ডবেশ্বর ও সালানপুরে ব্লকের জন্য হাইমাস্ট লাইট, শ্মশান ও সমাধি ক্ষেত্রের উন্নয়ন, পাকা রাস্তা ও নর্দমার জন্য বরাদ্দ করেছেন। মোট ১৫ টি উন্নয়নের কাজ হবে ওই ২ কোটি টাকায়।

এরমধ্যে সব থেকে বেশি বরাদ্দ হয়েছে কুলটি বিধানসভার জন্য। এই কাজগুলি চলতি বছরের মার্চের মধ্যে শেষ করে ফেলতে হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। সূত্রের খবর, ২৬ তারিখ তিনি ইস্তফা দেবেন। তারপর তিনি সাংসদ থাকবেন না। উন্নয়নের কাজ যেন থেমে না যায় তারজন্য ইস্তাফা দেওয়ার আগেই এই অর্থবরাদ্দ করে দিলেন।

বাবুল বলেন, “আমার কাছে আসানসোল খুব কাছের ও ভালোবাসার জায়গা। আগামীদিনেও যেখানেই থাকব, আসানসোলের জন্য যতটা সম্ভব তার থেকেও বেশিই করব।” উল্লেখ্য, আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বিজেপি ছাড়ার পর বলেছিলেন তিনি রাজনীতি থেকে বিদায় নিচ্ছেন। তৃণমূল যোগের পর এবার সাংসদ পদও ছাড়বেন।


বাবুলের এই পোস্টের পর অবশ্য তাঁকে নানারকমভাবে ট্রোলের মুখে পড়তে হয়। ক্রমাগত ‘বেইমান’ বলে তিরস্কার করা হতে থাকে তাঁকে। সব কিছুরই জবাব বাবুল সুপ্রিয় কমেন্ট বক্সে সরাসরি এদিন দেন। তিনি এদিন ফেসবুক পোস্টে লেখেন, “২০১৪ সালে কঠোর পরিশ্রম করে সাংসদ হয়েছিলাম। পরের বারে তিনগুণ বেশিভোটের ব্যবধানে জয়ী হই। তারপরেও দল প্রমোশন দেয়নি। উল্টে নির্মমভাবে মন ভেঙে দিয়েছে।”

তিনি বলেন, “আমি বেআইনি কয়লার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছি সবসময়।” সমালোচকদের তিনি প্রশ্ন করেন, “কোথায় ছিলেন যখন একের পর এক কয়লা মাফিয়াদের দলে নেওয়া হচ্ছিল? কেন প্রতিবাদ করেননি? আমি যে দুর্নীতিমুক্ত, তা বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যই বলেছেন। তাই নির্ভয়ে জবাব দিলাম। মানুষের টাকার হিসেব মানুষকেই দিলাম।”

প্রসঙ্গত, এই বৃহস্পতিবারই সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার কথা ছিল বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লার কাছ থেকে সময় না পাওয়ায় ইস্তফা দিতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন: Dengue & Malaria: কোভিড নয়, পুজোর মুখে আসল ভয় ধরাচ্ছে ডেঙ্গি-ম্যালেরিয়া! দুশ্চিন্তায় স্বাস্থ্য ভবন

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla